খাবার দেখে মানুষ চিনুন

Advertisement

অন্যের সম্পর্কে জানার আগ্রহ কম-বেশি সকলেরই থাকে, তাই না? খুব তাড়াডাড়ি এই আগ্রহ মেটাতে চাইলে আপনার আশেপাশের মানুষ কী খাচ্ছে, তার দিকে লক্ষ্য রাখুন৷ তাহলেই জেনে যাবেন কী ধরনের মানুষ তাঁরা৷ লিখছেন সাফিয়া আহমেদ

Advertisement

সমীক্ষা যা জানায়: নতুন সহকর্মী, নতুন প্রতিবেশী, অল্প পরিচিত বা অপরিচিতদের সম্পর্কে প্রাথমিক ধারণা পেতে তাঁদের খাবারের দিকে একটু নজর দিন৷ কারণ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ১৮,০০০ মানুষকে নিয়ে করা এক সমীক্ষা থেকে সে তথ্যই বেরিয়ে এসেছে, যা জানিয়েছেন মার্কিন মনোবিজ্ঞানী ডা. এলান হির্শ৷

কাঠবাদামপ্রেমীরা হয় শান্ত প্রকৃতির: কাঠবাদাম বা অ্যালমন্ড যে খুব ভালোভাবে চিবিয়ে খেতে হয়, তা আমরা সকলেই জানি৷ আর এভাবে খাওয়ার মধ্যে কোথায় যেন একটা শান্তির ছাপ থাকে৷ তাই কাউকে কাঠবাদাম খেতে দেখলে ধরে নিতে পারেন যে, সেই ব্যক্তি তাড়াহুড়ো বা কোনো ধরনের চাপ পছন্দ করেন না৷ এ সব মানুষ পরিবার বা পেশা – সব জায়গাতেই শান্ত পরিবেশকে প্রাধান্য দেয় বলে জানান ডা. হির্শ৷

চিপসপ্রেমীরা কি উচ্চাভিলাষী: নতুন চিসপ-এর প্যাকেট খোলার শব্দ এবং তাড়াতাড়ি হুমড়ে খেয়ে পড়ে খাওয়ার ধরণই জানিয়ে দেয়, যে খাচ্ছে সে কতটা ‘ডাইনামিক’৷ কীভাবে তিনি কত তাড়াতাড়ি প্যাকেটটা শেষ করবেন, অর্থাৎ কীভাবে তিনি তাঁর গন্তব্যে পৌঁছবেন, তা তিনি খুব ভালো করেই জানেন৷ হোক তা পেশা কিংবা পরিবার, সব ক্ষেত্রেই এঁরা চিপস খাওয়ার মতো তাড়াতাড়ি সাফল্য চান৷

পুদিনার স্বাদ এনে দেয় সমস্যার সমাধান: পুদিনা পাতার স্বাদ যাতে আছে, সেটা স্ন্যাক্স বা চুইংগাম যাই হোক না কেন, এর মিষ্টি তাজা সুগন্ধ মাথার জট খুলে দেয়৷ অর্থাৎ কোনো সমস্যার চটজলদি সমাধান পেতে সহায়তা করে পুদিনার সুগন্ধ৷ শোনা যায়, পুদিনাপ্রেমীরা টেকনিক্যাল বিষয়ে চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে পছন্দ করেন৷ পছন্দ করেন কম্পিউটারে নানা জটিল সব কাজ করতে৷

আসল কথা রঙিন, চাই বৈচিত্র: যাঁরা নানা রঙের লজেন্স, টফি বা এ ধরনের মিষ্টিজাতীয় খাবারের দিকে হাত বাড়ান, তাঁদের দেখে বুঝতে হবে যে তাঁরা জীবনে বৈচিত্র পছন্দ করেন৷ এঁদের নাকি একঘেয়ে বা অবিবেচক মানুষকে ভীষণ অপছন্দ৷

‘শান্তনা’ পেতে চকোলেট: যাঁরা সহজে নিজের দুর্বলতা ঢাকতে চান বা মাথা নত করতে চান না, তাঁরা ঝটপট এক টুকরো চকোলেট বা চকলেটের খোঁজ করেন৷ চকোলেটপ্রেমীরা নাকি নিয়মিত মানুষকে আলিঙ্গন করে শান্তনা বা রোম্যান্টিকতা পাবার আশায়৷ চকোলেটের জন্য অস্থির হয়ে রয়েছে – এমন মানুষকে দেখলে বুঝতে হবে তাঁদের সে মুহূর্তে প্রয়োজন শান্তনা বা দু’টো মিষ্টি কথার৷

চেহারা রাগী, তবে মনটা নরম: পপকর্ণের শক্ত দানা দেখলে বোঝায় উপায় নেই যে, মাত্র কয়েক সেকেন্ডের তাপেই তা হয়ে উঠতে পারে মচমচে মজাদার খাবার৷ সেরকমই অনেক মানুষকে দেখে কঠিন প্রকৃতির মনে হয় বটে, কিন্তু তাঁদের সাথে মিশলে বোঝা যাবে যে আসলে তাঁদের মনটা নরম৷ তাছাড়া এঁরা বিনিময়ে কিছু পাওয়ার আশা না করেই প্রয়োজনে অন্যের সাহায্যে এগিয়ে আসেন৷ সমীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্য থেকে এ রকম তথ্যই বেরিয়ে এসেছে, জানান ডা. হির্শ৷