নড়াইলের লোহাগড়ায় স্কুলছাত্রী নুপুর খানম নামে এক স্কুল ছাত্রীকে অপহরণের পর ধর্ষণ ও হত্যার অভিযোগ উঠেছে। রোববার সন্ধ্যায় লোহাগড়া হাসপাতাল থেকে ওই ছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সোমবার পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সদর হাসপাতালে প্রেরন করেছে। নুপুর উপজেলার রায়গ্রামের হিরু বিশ্বাসের মেয়ে ও আরকেকে জনতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী।

নিহতের চাচা বাচ্চু বিশ্বাস করেন, গত ছয়দিন আগে নুপুর খাতুন বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়। অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তাকে পাওয়া যায়নি। রোববার সন্ধ্যার পর খবর পেয়ে লোহাগড়া হাসপাতালে এসে নুপুরের মরদেহ পেয়েছি।

তিনি আরও অভিযোগ করেন, ব্রাক্ষ্মনডাংগা গ্রামের ওবায়দুর রহমান মানিকের ছেলে রবিউল ইসলাম রুবেল ও জালালসী গ্রামের চান সরদারের ছেলে আজাদ সরদার পরস্পর যোগসাজসে নুপুরকে তার বাড়ি থেকে অপহরণ করে লোহাগড়া বাজারের পোদ্দারপাড়া গ্রামের মিনির বাসায় রেখে গণধর্ষণ করে।

পোদ্দারপাড়া মিনি বেগম বলেন, গত চার-পাঁচদিন আগে নুপুর আমার বাড়ি ভাড়া নিয়েছিল। গতকাল রোববার সন্ধ্যায় নুপুর অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসি।

লোহাগড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডাঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, হাসাপাতালে আনার আগেই নুপুরের মৃত্যু হয়েছিল।

লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোকাররম হোসেন বলেন, মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।