ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে বাবার সঙ্গে অভিমান করে নয়ন দাস (১৫) নামে এক স্কুলছাত্র আত্মহত্যা করেছে।

রোববার রাতে উপজেলার সদর ইউনিয়নের ঘোষপাড়ারায় এই ঘটনা ঘটে।

নিহত নয়ন ওই এলাকার রেবতি দাসের ছেলে ও নাসিরনগর আশুতোষ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র।

স্থানীয়রা জানায়, কিছুদিন আগে নয়নের মা ক্যান্সার আক্রান্ত হয়ে মারা যান। মায়ের মৃত্যুর পর সংসারের রান্নাসহ যাবতীয় কাজের দায়িত্ব এসে পড়ে নয়নের ওপর।

এরপর থেকে সংসারের বিভিন্ন বিষয় বাবা-ছেলের মধ্যে প্রায়ই বাদানুবাদ হতো। রোববার সন্ধ্যার পরও বাবা ছেলের কথা কাটাকাটি হয়।

এর কিছুক্ষণ পর বাবা ঘর থেকে বের হয়ে গেলে রাত ৯ টার সময় ঘরের দরজা বন্ধ করে ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যার চেষ্টা করে নয়ন।

৯নং ওয়ার্ডের মেম্বার নগেন্দ্র বলেন, আত্মহত্যা করার জন্য গলায় রশি বেধে ঝুলতে থাকে নয়ন। এ সময় রশি ছিঁড়ে পড়ে গিয়ে তার মাথা থেকে রক্তক্ষরণ হয় এবং তার জিহ্বা কেটে পড়ে যায়।

পরে তাকে উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। জেলা সদর হাসপাতালে ময়নাতদন্তের পর লাশ বাড়িতে এনে দাহ করার ব্যবস্থা করা হয়েছে।