মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলা আলীনগর এলাকার রাজারচর গ্রামে ঘটেছে এক তোলপাড় করা ঘটনা। স্বামী সৌদি আরবে কাজ করেন। স্ত্রী এক যুবকের সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করেন।

এতে তিনি দেড় মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে বিষয়টি জানাজানি হয়। তখন পরকীয়ায় জড়িত ওই যুবকের বিরুদ্ধে সোমবার কালকিনি থানায় ধর্ষণ মামলা করেন ওই নারীর বাবা।

স্থানীয়রা জানান, কালকিনি উপজেলার আলীনগর এলাকার রাজারচর গ্রামের এক সৌদী প্রবাসীর স্ত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে হোগলপাতিয়া গ্রামের শামীম আকনের ছেলে মুন্না আকন বিভিন্ন সময় একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক করে। কিছুদিন আগে প্রবাসীর স্ত্রী হঠাৎ করে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যায় তার পরিবার। চিকিৎসক জানায় ওই নারী অন্তঃসত্ত্বা।

এ ঘটনায় ওই নারীর বাবা বাদি হয়ে কালকিনি থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। ঘটনা প্রকাশ পাওয়ার পর থেকে ওই অভিযুক্ত যুবক পলাতক রয়েছে।

ওই নারীর বাবা বলেন, আমার মেয়ের স্বামী প্রায় তিন বছর ধরে বিদেশে রয়েছে। এ সুযোগে আমার মেয়েকে ধর্ষণ করেছে লম্পট মুন্না। তাই আমার মেয়ে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে। আমরা মুন্নার বিচার চাই।

ঘটনার বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত মুন্নার সঙ্গে যোগযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে কালকিনি থানা ভারপ্রাপ্ত (ওসি) কর্মর্তাকা মো. মোফাজ্জেল হোসেনে কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে তদন্ত করে দেখে ব্যবস্থা নেব।