শুভংকর পোদ্দার, হরিরামপুর প্রতিনিধিঃ  মানিকগঞ্জের হরিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে বাল্য বিবাহ থেকে রক্ষা পেলো চালা ইউনিয়নের পূর্ব সাকুচিয়া গ্রামের মোসলেম মাতবর এর মেয়ে লিমা আক্তার।

একই সঙ্গে তাকে বাল্যবিবাহ দেওয়ার চেষ্টা করায় তার বাবাকে ১৫দিনের কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। আজ বুধবার (১০) জুলাই সন্ধ্যায় এ কারাদণ্ডাদেশ দেন হরিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইলিয়াস মেহেদী।

স্থানীয় সুত্রে জানাযায়, উপজেলার চালা ইউনিয়নের পূর্ব সাকুচিয়া গ্রামের মোসলেম মাতবর এর মেয়ে লিমা আক্তারের সাথে একই ইউনিয়নের শাটিনওদা গ্রামের এক রাজ্জাক নামের এক ছেলের সাথে (১১) জুলাই বৃহস্পতিবার বিয়ের দিন ধার্য করা হয়।

এখবর জানতে পেরে গায়ে হলুদের দিন বুধবার (১০) জুলাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিয়ে টি বন্ধ করে দেন এবং কনের পিতাকে ১৫দিনের কারাদণ্ড প্রদান করেন। এবিষয়ে হরিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইলিয়াস মেহেদী জানান, বাল্য বিবাহের খবর পেয়ে আমি সহ স্থানীয় একজন সাংবাদিক এবং হরিরামপুর থানার এস আই আজাদের নেতৃত্বে একটি পুলিশ টিম নিয়ে কনের বাড়িতে যাই, কনের পিতা আমরা যাওয়ার খবর শুনে গা ঢাকা দেন।

পড়ে পুলিশ এবং আত্বীয়স্বজন এর সহায়তায় তাদেরকে পাওয়া গেলে তারা মেয়ের ১৮বছর হয়েছে বলে দাবি করেন। কিন্তু তারা সরেজমিনে মেয়ের ১৮ বছর হওয়ার কোন প্রমাণ দিতে না পারায় বাল্যবিবাহটি বন্ধ করে দেই এবং বাল্যবিবাহ এর প্রস্তুতি নেওয়ার কারণে কনের পিতাকে ১৫দিনের কারাদণ্ড দেই।